Poems by Eden Soriano Trinida / Translated into Bengali by Professor Dr. Masudul Hoq

 
Poems by Eden Soriano Trinida
 
 
—————-ফিলিপাইনের কবিতা—————–
 
মূল:ইডেন সোরিয়ানো ত্রিনিদাদ
রূপান্তর: মাসুদুল হক
 
কে (WHO)
 
আমরা কি বৃষ্টিকে ঝরে পড়া থেকে থামাতে পারি?
সূর্যকে প্রতি ভোরে উদিত হ‌ওয়া থেকে ?
এবং কে পারে পৃথিবীকে আকাশজাত সৌন্দর্যে মোড়াতে ?
কে পারে পাখিদের বলতে পৃথিবীতে ওড়াউড়ি বন্ধ করতে?
এবং যে ডালে এসে বসবে তা তাদের খুঁজে দিতে?
আর কে পারে মাঠের পশুদের লোভী হওয়া থেকে বিরত রাখতে?
কে পারে মায়ের হাতের উষ্ণতায় হঠাৎ করে ঠান্ডা লাগা কান্নারত শিশুটির কান্না থামাতে
এবং কে পারে প্রথম ঘুমপাড়ানি গানের সুর ভুলে থাকতে ?
“চড়ুই যদিও এক পয়সায় বিক্রি হয়,তবু এই পাখিদের
একটাও তার যত্নের বাইরে মাটিতে পড়ে না
এমনকি বালুগুলোও বাতাসে উড়তে পারে না
আমরা কি এই সমস্ত কিছুর চেয়েও মূল্যবান!”
 
 
লোমের পোষাক (Fur)
 
অন্ধকারের জ্বলজ্বল স্থিরতায়
নরম পাপড়ি মাটিতে নামছে
ঘড়ঘড়, ঘেঁষাঘেঁষি
হুশ, হুশ
জ্বলন্ত মুহুর্তের শব্দ
রাতের নীরবতা ভাঙ্গে
মুকুটের গদিটাকে
এখন আরও শক্ত করে ধরো
এর স্নিগ্ধতার স্বপ্ন দেখতে
নস্টালজিক মুহূর্তে
এ এক নীরব আত্মত্যাগ
স্তম্ভিত শূন্যতায়।
 
 
কারণ হ‌ও (BE the reason)
 
আশ্রয়স্থল হতে, রক্ষক হতে,
নিরাময়ের কারণ হতে
কারো জীবনে
যারা ধীরে ধীরে দূরে চলেছে
অজানায়, একটি অমিতব্যয়ী বোকামিতে
তাদের অবরুদ্ধ না করে এবং চলে যেতে না বলে
বরং বন্ধু হতে হয়
 
যখন কেউ ঝড়ের ভেতরে ঘুরে বেড়াচ্ছে
যখন মেঘের চারপাশে ঝাঁকুনি শুরু হয়
তখন একটি হাত বাড়িয়ে দেওয়া প্রয়োজন
তাদের চরম হতাশায়।
তাদেরকে অন্ধকার থেকে দূরে সরিয়ে আনার
কারণ হ‌ও।
 
 
একজন কবির বক্তব্য (Parlance of a Poet)
 
আমরা আত্মার সেই টমটম গাড়ি
যা সত্যের ঝলক ছড়িয়ে দেবে
হতাশ আর অসমাপ্ত আত্মার
বৃহৎ প্রাচীরে প্রাচীরে
 
আমরা সূর্য আর পৃথিবী
এত দূরে থেকেও এখনো এত কাছাকাছি
জীবনকে জাগিয়ে তোলার জন্য
কালো রাতগুলি অনুসরণ করে ভোরের আলো
 
আমাদের কবিতা কত সাধুবাদ জানায়?
কানায় কানায় পূর্ণ আশা নিয়ে
রোদের অংশী হয়ে উঠতে
মানুষের আত্মার অন্ধকার দূর করতে
 
আমরা অবরুদ্ধ তবে পতিত ন‌ই
বিশ্বাস করি আমরা একত্রিত হলে ঘুরে দাঁড়াব
যখন দানবেরা মুক্ত– আমরা তখন আবদ্ধ
কী আশ্চর্য আমরা যা পারি এখনো তা করিনি
 
তবে আমরা নাট্যমঞ্চে টমটম নিয়ে প্রস্তুত
জীবনের ছড়িয়ে পড়া সরলতাটুকু শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের প্রার্থনায় অন্তর্ভূক্ত করে নিতে
যেন একজন কবির হৃদয়ই তার কথা হয়ে ওঠে।
 
 
ওহ, করতল! (Oh, Palm!)
 
সে … তাকে একটি ফুল উপহার দিলো …
তার করতল তাকে অবাক করে দেয়।
এ যেন কবিতার মতো একটি হাত।
 
সে করতলটিকে চুম্বনের ঝর্ণায় সিক্ত করতে চাইলো
এবং কোমলভাবে আঁকড়ে ধরলো।
 
তার করতল তাকে পাগল করে তোলে
এবং উষ্ণতার মায়াযুক্ত মনে হয়।
 
এ হাত তার বড় মধুর মনে হয়,
এবং করতলের মিলনে বিবাহের ইচ্ছে জাগে।
 
আহা এ যেন স্বর্গীয় তাল ফল,
আমাকে স্পর্শ করো না, গাল লজ্জায় জ্বলছে।
 
ওহ, তাল!
আমি তোমাকে আরো নিবিড় করে চাই
 
তোমার আলতো করে জড়িয়ে ধরা ফুলের সৌন্দর্যে তোমাকে চাই জীবনে আমার পাশে।
———- ———- ——– ——–
 
ফিলিপাইনের কবি ইডেন সোরিয়ানো ত্রিনিদাদ(Eden Soriano Trinida)।মূলত কবি ও অনুবাদক।
ইডেন ব্লুমস কাব্যগ্রন্থের এই লেখিকা পাঁচটি আন্তর্জাতিক কাব্যসংকলের সম্পাদক ও অনুবাদক।
তার লেখাসমূহ ফিলিপাইন বিশ্ববিদ্যালয়ের “ইনস্টিটিউট অফ ক্রিয়েটিভ রাইটিং”-এর ফ্রেইলিপিয়ানা অনলাইন লাইব্রেরিত (FOL) থেকে নিয়মিত প্রকাশিত হয়।
তিনি নেপালের জারা ফাউন্ডেশনের আন্তর্জাতিক সহ-সভাপতি, বেলজিয়ামের “অ্যাটোনিস গ্যালাক্সি কবিতা’ ওয়েবজিনের পরিচালক, বেইজিং-কেন্দ্রিক “চীনা বসন্তের কবিতা উৎসব”-এর ফিলিপাইন শাখার সভাপতি। এছাড়াও চীনের সিল্ক রোডে কবিতা পরিষদসহ অনেকগুলো আন্তর্জাতিক কাব্যসংগঠনের সঙ্গে যুক্ত।
 
 
 

Translated into Bengali by Professor Dr. Masudul Hoq

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s